No icon

মুক্তিযোদ্ধাদের মহাসমাবেশ ২৪ এপ্রিল

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন পরিষদের নেতা-কর্মীরা। জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা, ১৬ এপ্রিল। ছবি: প্রথম আলো

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন পরিষদের নেতা-কর্মীরা। জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা, ১৬ এপ্রিল। ছবি: প্রথম আলোজাতীয় অস্তিত্ব রক্ষা ও স্বাধীনতার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র প্রতিহত করার লক্ষ্যে ২৪ এপ্রিল বেলা দুইটায় শাহবাগে মুক্তিযোদ্ধাদের মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন পরিষদ।

আজ সোমবার দুপুর পৌনে ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলার কনফারেন্স লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

মুক্তিযোদ্ধা মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন পরিষদের নেতারা বলছেন, কোটা সংস্কারের নামে স্বাধীনতাবিরোধীরা অপচেষ্টা চালাচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধারা এই পরিস্থিতিতে চুপচাপ বসে থাকতে পারে না। এ লক্ষ্যেই মহাসমাবেশ করা হবে। সেই সমাবেশ থেকে জাতীয় অস্তিত্ব রক্ষা ও স্বাধীনতার বিরুদ্ধে সব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করার লক্ষ্যে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

সংবাদ সম্মেলন শেষে মুক্তিযোদ্ধা মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কাউন্সিলের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবদুল আহাদ চৌধুরী বলেন, ‘এই কোটার নাম করে কেন মুক্তিযোদ্ধাদের অপমান করা হলো? আমরা তো বাকি জীবন একটা গৌরব নিয়ে বাঁচতে চেয়েছিলাম। আমরা কোটা নিয়ে মোটেও আন্দোলন করছি না। এটা সরকারের বিষয়। কোটা সিদ্ধান্ত নেবে সরকার।’

আবদুল আহাদ চৌধুরী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সব কোটা বাতিল। আমরা মেনে নিয়েছি। উনি যদি আবার বলেন আবার দেবেন। সে ব্যাপারে আমাদের কোনো বিতর্ক নেই। আমরা শুধু বলছি, মান না দেন অন্তত অপমান করবেন না।’

এর আগে বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক আবদুল আহাদ চৌধুরী লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। তিনি বলেন, ‘অতি সম্প্রতি কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে স্বাধীনতাবিরোধী চক্র চালাকির সঙ্গে ছাত্রছাত্রী ও যুবকদের মাঝে ভ্রান্ত ধারণা সৃষ্টি করেছে। তারা অরাজকতা করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতি সরাসরি আঘাত করেছে। দেশের মুক্তিযোদ্ধা, পরিবার ও দেশপ্রেমিক জনগণকে বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনকভাবে আহত করেছে। তাদের জানাতে চাই, মুক্তিযোদ্ধাদের মান না দাও, অপমান করো না।’

মুক্তিযোদ্ধাদের ছয়টি নিবন্ধিত সংগঠন নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন পরিষদ গঠিত। আজকের সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্যসচিব মো. মিনহাজুর রহমান, আবদুস সালাম মজুমদার, সেলিম চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Comment