No icon

এই নির্বাচন কমিশন অথর্ব: ফখরুল

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের কঠোর সমালোচনা করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই নির্বাচন কমিশন একেবারেই অথর্ব। তারা একটি নির্বাচন পরিচালনা করতে পারে না। কথায় কথায় সরকারি দলের ধমকের মধ্য দিয়ে আইন পরিবর্তন করে। তিনি আরও বলেন, এই নির্বাচন কমিশনকে বাতিল করে দিয়ে পুনর্গঠন করতে হবে। তা না হলে এখানে কোনো নির্বাচন হবে না।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘পরিষ্কার করে বলছি, আমরা চাই অবিলম্বে এই নির্বাচন কমিশনকে বাতিল করে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করা হোক। নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করা হোক, যারা একটি সুষ্ঠু নির্বাচন পরিচালনা করতে পারবে।’ তিনি বলেন, নির্বাচনই সরকার পরিবর্তনের একমাত্র পথ, গণতান্ত্রিক পথ। যদি সেই নির্বাচনের পরিবেশ না থাকে, যারা নির্বাচন পরিচালনা করবে, তারা যদি একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করতে চায়, মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিতে চায়, সেই নির্বাচন হবে না।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়াকে ছাড়া কোনো নির্বাচনে বিএনপি যাবে না। অবশ্যই তাঁকে মুক্তি দিতে হবে। এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে হবে এবং সেনাবাহিনী মোতায়েন করলে নির্বাচন সম্ভব হবে, অন্যথায় হবে না।

মাদক নির্মূল অভিযান প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশের মানুষের বেঁচে থাকার অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। মাদক নির্মূলের নাম দিয়ে পাখির মতো গুলি করে মানুষ মারছে। সরকার মাদক নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। সে জন্য তারা ভয়াবহ একটা হাতিয়ার বেছে নিয়েছে।

বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমদ, সেলিমা রহমান প্রমুখ।

সূত্রঃ প্রথম আলো 

Comment