A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Undefined variable: newsPosition

Filename: models/Write_setting_model.php

Line Number: 188

Backtrace:

File: /home/sottokonthonews/public_html/application/models/Write_setting_model.php
Line: 188
Function: _error_handler

File: /home/sottokonthonews/public_html/application/controllers/Print_article.php
Line: 11
Function: home_category_position

File: /home/sottokonthonews/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম
Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম
নোয়াখালীতে সরকারি হাসপাতালের পলেস্তারা ধসে দুই নার্স আহত
Wednesday, 11 Jul 2018 11:02 am
Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম

Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের পুরোনো ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষের ছাদের একাংশের পলেস্তারা খসে পড়ে দুই নার্স গুরুতর আহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে মেডিসিন বিভাগের পুরুষ ওয়ার্ডে (৮ নম্বর) এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের রোগীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

আহত নার্সরা হলেন জ্যেষ্ঠ স্টাফ নার্স স্বপ্না মজুমদার ও শিক্ষানবিশ রানী আক্তার। তাঁদের মাথা ফেটে গেছে। তাঁদের একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, রাত তিনটার দিকে কর্তব্যরত দুই নার্স ওয়ার্ডের পাশের কক্ষে বসে নাশতা করছিলেন। এ সময় ওপর থেকে ছাদের পলেস্তারা খসে তাঁদের মাথার ওপর পড়ে। এতে দুজনই গুরুতর আহত হন। তাৎক্ষণিক ওয়ার্ডে থাকা রোগীর স্বজনেরা দুজনকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেন। পরে তাঁদের জরুরি বিভাগে নিয়ে প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দিয়ে একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালের পুরোনো ভবনের একটি কক্ষের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়েছে। ছবি: প্রথম আলোহাসপাতালের পুরোনো ভবনের একটি কক্ষের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়েছে। ছবি: প্রথম আলো২৫০ শয্যাবিশিষ্ট এই জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মো. খলিল উল্যাহ প্রথম আলোকে তিনি বলেন, নার্সরা রাতে দায়িত্ব পালনের একপর্যায়ে তাঁদের বিশ্রামের কক্ষে গিয়ে বসেন। এ সময় তাঁদের মাথার ওপরে ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে। এতে দুজনই গুরুতর আহত হন। হাসপাতালে তাঁদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তত্ত্বাবধায়ক মো. খলিল উল্যাহ বলেন, পুরোনো ভবনটি এমনিতেই ব্যবহার না করার নির্দেশনা রয়েছে। বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে অস্থায়ী শেড নির্মাণের কাজ শেষ না হওয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই কার্যক্রম চলছে। পাশাপাশি আরেকটি ভবনের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণের কাজ চলছে। ওই কাজগুলো শেষ হলে পুরোনো এই ভবন ভাঙা হবে।

সূত্রঃ প্রথম আলো