A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Undefined variable: newsPosition

Filename: models/Write_setting_model.php

Line Number: 188

Backtrace:

File: /home/sottokonthonews/public_html/application/models/Write_setting_model.php
Line: 188
Function: _error_handler

File: /home/sottokonthonews/public_html/application/controllers/Print_article.php
Line: 11
Function: home_category_position

File: /home/sottokonthonews/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম
Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম
উড়ছেন পূজা
Thursday, 12 Jul 2018 11:20 am
Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম

Sottokonthonews.com || সত্যকণ্ঠ নিউজ ডটকম

পূজা যখন এক্কেবারেই ছোট, তখন মায়ের ইচ্ছা ছিল বড় হয়ে মেয়েকে আইনজীবী বানাবেন। কিন্তু পূজা ক্লাস ওয়ানে পড়ার সময় ঘটে এক ঘটনা। বদলে যায় মায়ের স্বপ্ন, বদলে যায় পূজার জীবন। প্রথম আলোর সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে সেদিনের সেই ঘটনাটিই বললেন পূজা চেরি। সেই পূজা চেরি যে এখন উড়ছেন আকাশে, পোড়ামন ২ ছবিতে অভিনয় করে ভাসছেন প্রশংসার জোয়ারে।

পূজা চেরি। ছবি: সুমন ইউসুফপূজা চেরি। ছবি: সুমন ইউসুফঈদের ছবি হিসেবে গত ১৫ জুন দেশজুড়ে মুক্তি পেয়েছে পোড়ামন ২। ছবিতে ‘পরী’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন পূজা চেরি। সোমবার বিকেলে প্রথম আলো কার্যালয়ে তিনি যখন ঢুকছিলেন, তখন রাস্তার এক পথচারী চমকে উঠে পাশের জনকে বলছিলেন, ‘দেখ দেখ ওই যে পোড়ামন ২ ছবির নায়িকা যায়!’ নায়িকা হিসেবে নিজের দ্বিতীয় ছবিতেই এমন পরিচিতি পূজাকে এক অন্য জগতে নিয়ে গেছে। যে জগতে পূজা উড়ছেন। তবে কাজের সময় ঠিক মাটিতে নেমে এসে বিনয় দেখাতে ভুলছেন না।

পূজার এমন সুদিন কিন্তু শুরু থেকেই ছিল না। বেশ একটা ধাক্কা খেয়েই নায়িকা হওয়ার জেদ পূজাকে পেয়ে বসে। সেই ঘটনা বেশ কয়েক বছর আগের। তখন পূজা ক্লাস ওয়ানে পড়তেন। পাশের বাড়ির এক ‘আন্টি’র মাধ্যমে একটি বুটিকের বিজ্ঞাপনের মডেল হন তিনি। বিজ্ঞাপনচিত্রের শুটিংয়ের সময় চলচ্চিত্র পরিচালক শাহ আলম মণ্ডলের সঙ্গে পরিচয় হয় পূজার মা ঝর্ণা রায়ের। হঠাৎ একদিন শাহ আলম মণ্ডলের মাধ্যমে মনের ঘরে বসত করেনামের একটি ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয়ের সুযোগ পান পূজা। ছবিতে পূজা নায়ক শাকিব খানের বোন। পরিচালক জাকির হোসেন রাজু। মেয়ে সিনেমায় অভিনয় করেছে—এ তো মা ঝর্ণা রায়ের জন্য দারুণ ব্যাপার। শুটিংয়ের আগে মেয়ের জন্য দামি দামি পোশাক কিনলেন, পাঁচ-ছয় দিন মেয়েকে নিয়ে গেলেন শুটিংয়ে।

এরপর এল ছবি মুক্তির সেই বিশেষ দিন। পূজার বাসায় যেন ঈদের আমেজ! বাসার পাশের বিডিআর সিনেমা হলে সবাই মিলে ছবি দেখতে গেলেন। পূজার বন্ধু, আত্মীয়স্বজন মিলে প্রায় ২০ জনের জন্য টিকিট কাটলেন পূজার মা নিজেই। ছবি শুরু হলো। একের পর এক দৃশ্য আসছে, কিন্তু দেখা যাচ্ছে না পূজাকে। একসময় ছবি শেষও হয়ে গেল। না, পূজাকে ছবির কোনো অংশে দেখা গেল না। এতগুলো পরিচিতজনের সামনে মা ঝর্ণা রায়ের লজ্জায় মাথা কাটা গেল। মনে মনে জেদ ধরলেন মা। মেয়েকে আর আইনজীবী বানাবেন না, চলচ্চিত্রেরই নায়িকা হবেন পূজা। মায়ের ইচ্ছাই পূজার স্বপ্ন। সেই স্বপ্ন পূরণের জন্যই আজ এ পথে এসেছেন তিনি।

সাক্ষাৎকারের শুরুতেই পূজা শোনালেন হলে হলে ঘুরে পোড়ামন ২ ছবি দেখে দর্শকের অনুভূতি প্রকাশের কথা। দর্শকের উচ্ছ্বাস দেখে নাকি তাঁর চোখ থেকে বেশ কয়েকবার আনন্দের অশ্রু ঝরে পড়েছিল। গত কয়েক দিনে শোনা অনেক প্রশংসার কথা বললেন তিনি। একটির কথা তো বিশেষভাবে বললেন। সেটা হলো অভিনেত্রী শাবনূরের প্রশংসা। সম্প্রতি দলবেঁধে পোড়ামন ২ছবিটি দেখছিলেন অভিনেতা ওমর সানি, মৌসুমী, শাবনূর, সাহারা, অমিত হাসানেরা। পূজা জানালেন, ছবি শেষে হল থেকে বেরিয়ে এসে নাকি তাঁকে জড়িয়ে ধরেছিলেন শাবনূর। আবেগী হয়ে পূজাকে বলেছেন, ‘মনে হচ্ছিল যেন পর্দায় পরী চরিত্রটিতে আমিই অভিনয় করছি।’ বিজয়ীর হাসি মুখে এনে পূজা বলেন, ‘আমার আর কী চাই বলুন! আমিও চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি।’

এই যে এত প্রশংসা—এসব তাঁকে এই বয়সে একটু বেশিই ওপরে নিয়ে যাচ্ছে না তো? একটু চুপ থেকে পূজা জবাব দিলেন, ‘তারকা আমি হয়ে উঠিনি। তারকা হওয়া তো অনেক পরের বিষয়। তবে ভালো কাজ করে প্রশংসা পাওয়ার মধ্যে আনন্দ আছে। আপাতত আমি ঝুলি ভরে সেই আনন্দ কুড়ানোর চেষ্টা করছি। এসব প্রাপ্তিকে অনুপ্রেরণা হিসেবে জমিয়ে রাখছি।’

সেই যে ধাক্কা খাওয়ার পর থেকে পূজা অভিনয় শুরু করেছেন, আর থামেননি। শিশুশিল্পী হিসেবে বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। নায়িকা পূজার জন্ম নূর জাহান নামের একটি ছবিটি দিয়ে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে এটি মুক্তি পায়।

সামনে পূজাকে দেখা যাবে তাঁর পোড়ামন ২ ছবির নায়ক সিয়ামের সঙ্গে আবারও। এবারের ছবির নাম দহন। আর এরপর আছে ভারতের বাংলা ছবি প্রেম আমার ২। এত এত সিনেমার ফাঁকে পড়াশোনাটা কি তাহলে লাটে উঠল? না। ছোটবেলা থেকে চলচ্চিত্র, বিজ্ঞাপনচিত্রের কাজ করলেও পড়াশোনায় কখনো ছেদ পড়েনি। শুটিং সেটেও বই, খাতা, কলম সঙ্গে নিয়ে কাজ করেছেন, পড়েছেন। আগামী বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবেন পূজা। তার আগে সব রকমের শুটিং থেকে নেবেন দীর্ঘ ছুটি। পূজা বলেন, ‘ভালো অভিনয়শিল্পী হতে ভালো একাডেমিক ব্যাকগ্রাউন্ডও জরুরি। দহন ও প্রেম আমার ২ ছবির শুটিং শেষ হলেই আপাতত আর কোনো কাজ করব না। পড়াশোনায় ডুবে যাব।’

সূত্রঃ প্রথম আলো