No icon

দঙ্গলকে পেছনে ফেলতে পারবে কী ‘বাহুবলী-টু’?

ভারতসহ বিশ্বব্যাপী ১ হাজার ৮০০ কোটি আয় করে আলোচনা জন্ম দিয়েছিল বহুল আলোচিত ছবি ‘বাহুবলী-টু’। দর্শকপ্রিয়তা কিংবা ব্যবসার দিক দিয়ে ভারতীয় সিনেমার বক্স অফিসের ইতিহাস ওলট-পালট করে দেওয়া প্রভাস-আনুশকার ছবি এবার মুক্তি পাচ্ছে চীনে।

একসঙ্গে চীনের ছয় হাজার সিনেমা হলে মুক্তি পাচ্ছে এস এস রাজামৌলি পরিচালিত ‘বাহুবলী-টু: দ্য কনক্লুশন’। আগামী মে মাসের ৪ তারিখে ছবিটি মুক্তি পাবে সেখানে। চীনে মুক্তি পাওয়া নিয়ে আলোচনার জন্ম দিয়েছে প্রভাসের বাহুবলী। সবার প্রশ্ন পারবে কী আমির খানের ‘দঙ্গল’কে পেছনে ফেলতে।

চীনের সিনেমা ইতিহাসে নতুন নজির গড়েছে আমির খানের ‘দঙ্গল’। সেখানে মোট নয় হাজার স্ক্রিনে মুক্তি পেয়ে বাজিমাত করে ছবিটি। আমিরের ছবিকে দর্শক যেভাবে গ্রহণ করেছেন, তা হিন্দি সব ছবির ক্ষেত্রে সেটা প্রযোজ্য নাও হতে পারে। সেখানকার বেশির ভাগ দর্শকই ‘পিকে’, ‘থি ইডিয়টস’, ‘দঙ্গল’ ও ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন দর্শকেরা।

চীনের বক্স অফিসের সূত্রে জানা গেছে, চীনে আমিরের মুক্তি পাওয়া প্রথম ছবি ‘পিকে’ সে দেশে আয় করে ১২১ কোটি রুপি, ‘দঙ্গল’ এর আয় ১ হাজার ৩৩০ কোটি রুপি, ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ চীনের বক্স অফিসে আয় করে ৭৬৮ কোটি রুপি, যা এ ছবির ভারতীয় বক্স অফিসের আয়ের চেয়েও বেশি। এদিকে সালমান খানের ‘বজরঙ্গি ভাইজান’ চীনে আয় করতে সক্ষম হয় ২৯৩ কোটি রুপি, অবশ্য ভারতে মুক্তির দুই বছর পর চীনে ছবিটি মুক্তি দেওয়া হয়। তত দিনে অনেকেই ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করে ছবিটি দেখে ফেলেছেন। আর চীনে সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ইরফান খানের ‘হিন্দি মিডিয়াম’ সিনেমার আয় মাত্র ১৪০ কোটি রুপি। এ ছাড়া বলিউডের বাকি যে ছবি চীনে মুক্তি পেয়েছে, তাঁর আয় উল্লেখযোগ্য নয়। তাই এবার ‘দঙ্গল’কে টক্কর দিতে চীন পাড়ি দিতে যাওয়া ‘বাহুবলী ২’ সেদেশে উন্মাদনা জাগাতে পারে কি না এখন দেখার অপেক্ষা সেটাই। চীনের বাজারে আমিরের ‘দঙ্গল’কে টপকাতে পারবে কি না প্রভাসের ‘বাহুবলী-টু’ তার মে মাসের প্রথম সপ্তাহেই জানা যাবে।

ডাবিং করা ভারতের আঞ্চলিক কোনো ছবি প্রথম পাকিস্তানে মুক্তি পেয়েছিল বাহুবলী। ‘বাহুবলী ২’ ডাবিং করা হিন্দি ভার্সন পাকিস্তানের গত বছরের মে মাসে চলেছে। পাকিস্তানের মাত্র ১০০ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়ে বাজিমাত করেছিল বাহুবলী। ওই সময় বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, বাহুবলী-জ্বরে আক্রান্ত পাকিস্তানও। ছবিটি মুক্তির এক সপ্তাহের মধ্যেই দেশটিতে সাড়ে ১০ কোটি রুপি আয় করে। দেশটির দর্শকেরা ছবিটি দেখতে ভিড় জমিয়েছেন কয়েকটি বড় শহরের সিনেমা প্রেক্ষাগৃহগুলোতে। ষড়যন্ত্র, যুদ্ধ, শত্রু নিধনের মতো বিষয়গুলো থাকায় পাকিস্তানের দর্শকদের মন জিতে নিয়েছিল প্রভাসের ছবিটি। এখন দেখার বিষয় হলো চিনে হয় প্রভাসদের অবস্থা পাকিস্তানের মতো হলো ভালোই।

গণ-উন্মাদনায় বলিউডকে টেক্কা দিয়ে ইন্ডিয়ান ফিল্মে দাদাগিরি দেখায় আঞ্চলিক ছবি ‘বাহুবলী ২ ’। বলিউডের সব রেকর্ড ভেঙে ইতিহাস গড়ে দক্ষিণের পরিচালক এস এস রাজমৌলির সিনেমা ‘বাহুবলী: দ্য কনক্লুশন’ বা ‘বাহুবলী ২ ’। প্রভাস, আনুশকা শেঠি, তামান্না ভাটিয়া, দাগ্গুবতী, রামাইয়া কৃষ্ণান ও সত্যরাজ অভিনীত ছবিটি একসঙ্গে নয় হাজার স্ক্রিনে মুক্তি পেয়েই রেকর্ড গড়েছিল। এর আগে কোনো ভারতীয় ছবি একসঙ্গে এত স্ক্রিনে মুক্তি পায়নি। আগাম ব্যবসার ক্ষেত্রেও রেকর্ড গড়েছিল প্রভাসের বাহুবলী। এর আগে আমির খানের ‘দঙ্গল’ মুক্তির আগে ১৮ কোটি রুপি ব্যবসা করেছিল। কিন্তু ‘বাহুবলী ২’ একেবারে দ্বিগুণ (৩৬ কোটি) ব্যবসা করেছে ছবি মুক্তির আগেই শুধু টিকিট বিক্রি করে। বাহুবলী প্রথম ভারতীয় কোনো ছবি ট্রাম্পের যুক্তরাষ্ট্রে একসঙ্গে ৮০০টি পর্দায় মুক্তি পেয়েছিল। সব মিলিয়ে ভারত ও পাকিস্তান মাতানো ‘বাহুবলী ২’ চীন মাতাতে পারবে—এমনটাই ধারণা মুভি বিশ্লেষকদের।

২০১৫ সালে মুক্তি পেয়েছিল ‘বাহুবলী’ সিরিজের প্রথম ছবি ‘বাহুবলী: দ্য বিগিনিং’। ছবিটি তখন বক্স অফিসে বেশ সাড়া ফেলেছিল। ৭৫০ কোটি রুপির বেশি অর্থ আয় করেছিল দক্ষিণের এই সিনেমা। এখন দেখার ব্যাপার হলো, ‘বাহুবলী: দ্য কনক্লুশন’ চীনে কেমন করে। আবার অনেকের ধারণা, কোটি রুপির ব্যবসা করবে এ ছবি। তবে সে জন্য অপেক্ষায় থাকতে হবে। তথ্যসূত্র: এনডিটিভি, বলিউড লাইফ ও ইন্ডিয়া ডট কম।

সূত্রঃ প্রথম আলো 

Comment