No icon

১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন

আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) ১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এছাড়া স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার অর্থায়নে ৭ হাজার কোটি টাকা অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ১ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকার নতুন এডিপি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) বৈঠকে এটি অনুমোদন দেয়া হয়।

সভাশেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, অনুমোদিত এডিপিতে ১৪৫২টি প্রকল্প রাখা হয়েছে। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্পের সংখ্যা ১২২৭টি, কারিগরি ১১৭ ও জেডিসিএফ দুটি প্রকল্প রয়েছে। এর বাইরে স্বায়ত্তশাসিত প্রকল্পের সংখ্যা ১০৫টি। মোট বরাদ্দের মধ্যে আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের এডিপিতে অগ্রাধিকার পাবে এসব মেগা প্রকল্প। মন্ত্রী জানান, অনুমোদিত এডিপিতে বৈদেশিক সহায়তা থেকে সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৬০ হাজার কোটি টাকা। বাকি ১ লাখ ১৩ হাজার কোটি টাকা জোগান দেয়া হবে সরকারের (জিওবি) নিজস্ব খাত থেকে।

মোট বরাদ্দের মধ্যে আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের এডিপিতে অগ্রাধিকার পাবে এসব মেগাপ্রকল্প। ১০টি মেগাপ্রকল্পে অগ্রাধিকার দিতে গিয়ে স্থানীয় সরকার, বিদ্যুৎ বিভাগ, পরিবহন, বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি, রেল, সেতু, স্বাস্থ্য, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে ১ লাখ ২৮ হাজার ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ থাকবে, যা মোট এডিপির ৭৪ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ।

অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, পদ্মাসেতুর বাস্তবায়নকে অগ্রাধিকার দিয়ে এবার সেতু বিভাগে ৯ হাজার ১১২ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হবে। অন্যদিকে মেট্রোরেলকে আরও দৃশ্যমান করতে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগে নতুন এডিপিতে থাকছে ২০ হাজার ৮১৭ কোটি টাকার বরাদ্দ। স্বপ্নের মেগা প্রকল্প পদ্মাসেতুর রেল সংযোগ। এরই মধ্যে এ বিষয়ে চীনের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। এতে ব্যয় হবে বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২১ হাজার ৩৬ কোটি টাকা। এজন্য নতুন এডিপিতে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের জন্য বরাদ্দ থাকছে ১১ হাজার ১৫৪ কোটি টাকা।

সূত্রঃ কালেরকন্ঠ 

Comment