No icon

ইমরান খানের সাবেক স্ত্রীর বই নিয়ে তুলকালাম

পাকিস্তানের তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান ও সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানের সাবেক দ্বিতীয় স্ত্রী রেহাম খানের বই প্রকাশের আগেই পাণ্ডুলিপির কিছু অংশ অনলাইনে ফাঁস হয়ে গেছে। আর সেখানে যা লেখা আছে তা নিয়ে দেশটির রাজনৈতিক অঙ্গনে তুলকালাম শুরু হয়েছে।

পিটিআইয়ের অনেক নেতা মনে করছেন বিরোধী দলের কাছ থেকে অর্থ নিয়ে ইমরানকে ছোট করতে তাঁর সাবেক স্ত্রী এমনটি করেছেন। কয়েকজন টুইটারে লিখেছেন, আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই ইমরান খানের চরিত্রকে কলুষিত ও মানসম্মানকে ভূলুণ্ঠিত করার এজেন্ডা এটা।

বইটি রেহাম ও খানের বিবাহিত জীবনকে ঘিরে লেখা।

১৯৯৫ সালে ইমরান প্রথম বিয়ে করেছিলেন জেমিমা গোল্ডস্মিথকে। ২০০৪ সালে সেই বিয়ে ভেঙে যাওয়ার পর ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে ইমরান আবার বিয়ে করেন পাকিস্তানি-ব্রিটিশ সাংবাদিক রেহাম খানকে। ওই বছরই অক্টোবরে ভেঙে যায় দ্বিতীয় বিয়েটাও।

পাকিস্তানের একজন বিখ্যাত সংগীতজ্ঞ ও পিটিআইয়ের সদস্য সালমান আহমেদ বলেন, সাবেক স্বামীর ক্ষতি করতে রেহাম পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এর কাছ থেকে অর্থ নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র আমাকে জানিয়েছে এই বইটি লিখতে রেহামকে পিএমএল-এন ১৫ লাখ রুপির বেশি দিয়েছে।’

এই রাজনীতিক আরও বলেন, রেহাম ইমরানের মানসম্মান ধুইয়ে দিতে তাঁকেও (সালমান) অর্থ সেধে ছিলেন। বলেন, ‘আমার কাছে সব প্রমাণ আছে। তিনি আমাকে যত ই-মেইল করেছেন, এর সবই আছে।’ ‘রেহামের মতে, ইমরান খান একজন ভণ্ড ও মিথ্যেবাদী। তিনি রোজা রাখেন না, নামাজ পড়েন না।’

পিটিআইয়ের আরেক সমর্থক অভিনেতা হামজা আলী আব্বাসি তাঁর টুইটারে বলেছেন, রেহাম খানের বইয়ের পাণ্ডুলিপি পড়ে তিনি খুবই দুঃখ পেয়েছেন। তাঁর মনে হয়েছে বইটির সারমর্ম হলো, পৃথিবীর সবচেয়ে জঘন্য মানুষ হলো ইমরান। রেহাম হচ্ছে খুবই ধার্মিক নারী এবং শাহবাজ শরীফ (সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের ভাই) চমৎকার মানুষ।’

এসব ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় রেহাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গত বছর আব্বাসির পাঠানো এক ই-মেইল প্রকাশ করে। তিনি বলেন, কোনো এজেন্সি বা হ্যাকারেরা পিটিআইকে তাঁর বিরুদ্ধে তথ্য দিয়েছে। তিনি টুইটারে লিখেছেন, ভেবে অবাক হচ্ছেন বই প্রকাশেই আগেই একজন অভিনেতার পক্ষে কেমন করে পাণ্ডুলিপি পড়া সম্ভব। ‘শুধুমাত্র জালিয়াতি বা চুরির মাধ্যমেই তা সম্ভব’।

পিটিআইয়ের মুখপাত্র ফুয়াদ চৌধুরী বলেন, পিটিআইকে বদনাম করতে বইটির প্রকাশের জন্য এমন সময় (নির্বাচনের আগে) বেছে নেওয়া হয়েছে। তিনি পদচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়মের সঙ্গে রেহামের দেখা করার সমালোচনা করেন। তাঁর মতে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহসান ইকবাল এই বৈঠকের আয়োজন করে। চৌধুরী দাবি করেন, এই অভিযোগ প্রমাণের পক্ষে তাঁর দলের কাছে সব তথ্য প্রমাণ রয়েছে।

চলমান এই বিতর্কের মধ্যে রেহামের সাবেক আরেক স্বামী ড. ইজাজ রেহমান খুব শিগগিরই রেহমানের ‘সত্যি’টা প্রকাশ করবেন বলে জানিয়েছেন। এই সত্যির মধ্য দিয়ে রেহামের ‘মাদকাসক্তি’, প্রেম ও হিংস্রতা বেরিয়ে আসবে বলা হচ্ছে।

সূত্রঃ প্রথম আলো 

Comment