No icon

জয়পুরহাটে চালককে হত্যা করে অটোরিকশা ছিনতাই

জয়পুরহাটে চালককে হত্যা করে অটোরিকশা ছিনতাই

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলায় চালককে গলা কেটে হত্যা করে তাঁর ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। আজ রোববার সকালে আক্কেলপুর-তিলকপুর সড়কের চারদীঘি এলাকায় অটোরিকশাচালকের লাশ পাওয়া গেছে। নিহত চালকের স্বজনেরা ঘটনাস্থলে এসে লাশটি শনাক্ত করেন।

নিহত ব্যক্তির নাম দুলাল হোসেন (৩৫)। তিনি নওগাঁর বদলগাছি উপজেলার পারিচা গ্রামের ছামিদুল ইসলামের ছেলে। দুলাল হোসেনের স্ত্রী ও এক সন্তান রয়েছে।

আজ সকাল ১০টায় ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, হলুদ রঙের গেঞ্জি ও জিনসের প্যান্ট পরা এক যুবকের লাশ সড়কের পাশে ঝোপের মধ্যে পড়ে আছে। লাশের নাক ও গলা কাটা ছিল। স্থানীয় লোকজন লাশটি দেখতে সেখানে ভিড় করেন। বেলা ১১টা দিকে ঘটনাস্থলে আসে আক্কেলপুর থানার পুলিশ।

স্থানীয় লোকজন জানান, পুকুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন আজ সকালে সড়কে প্রাতর্ভ্রমণ করছিলেন। তিনি সড়কের ঝোপের পাশে লাশটি দেখতে পেয়ে চিৎকার দেন। এরপর সেখানে লোকজন ছুটে আসেন। পরে রাজন, শহীদ ও শাওন নামের তিন ব্যক্তি সেখানে এসে লাশটি শনাক্ত করেন। তাঁরা নিজেদের নিহত দুলাল হোসেনের স্বজন বলে পরিচয় দেন।

নিহত অটোরিকশাচালকের চাচাতো বোনের স্বামী রাজন হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, তিনি নিজেও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালান। তাঁর স্ত্রীর চাচাতো ভাই দুলাল হোসেন প্রায় আড়াই মাস আগে এই অটোরিকশা কেনেন। প্রতিদিনের মতো গতকাল শনিবার সকালে দুলাল তাঁর অটোরিকশাটি বদলগাছি উপজেলার ভান্ডারপুর বাজারের অটোরিকশা স্ট্যান্ডে নিয়ে আসেন। সকাল ১০টার দিকে একজন অপরিচিত যাত্রী অটোরিকশা স্ট্যান্ডে আসেন। তিনি শ্রীরামপুর বাজারে যাওয়ার কথা বলে ১০০ টাকায় দুলালের অটোরিকশাটি ভাড়া করেন। এরপর দুলাল আর অটোরিকশা নিয়ে স্ট্যান্ডে ফেরেননি।

রাজন হোসেন জানান, বাড়ির লোকজন দুলালের মুঠোফোনে কল করে সেটি বন্ধ পান। আজ সকালে তাঁরা তিনজন দুলালের খোঁজে শ্রীরামপুর বাজারে আসেন। সেখানকার লোকজনের সঙ্গে কথা বলে কোনো সন্ধান পাননি। এরপর আক্কেলপুর-তিলকপুর সড়কের চারদীঘি নামক স্থানে একটি লাশ পাওয়া গেছে খবর পেয়ে এখানে আসেন। ঘটনাস্থলে এসে লাশটি দুলালের বলে শনাক্ত করেন।

দুলাল হোসেনের অটোরিকশাটি পাওয়া যায়নি।

আক্কেলপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, যাত্রী বেশে অটোরিকশাটি ভাড়া করার পর দুলাল হোসেনকে হত্যা করে অটোরিকশাটি দুর্বৃত্তরা নিয়ে গেছে বলে ধারণা করা যাচ্ছে। অটোরিকশার সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।

সূত্রঃ প্রথম আলো 

Comment