No icon

ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়ে নিষিদ্ধ হলেন সৌদি রেফারি

সৌদি আরবের কিংস কাপে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়ে ধরা পড়েন দেশটির রেফারি ফাহাদ-আল মিরদানসাই। সৌদি আরবের ফুটবল ফেডারেশন তাঁকে আজীবন নিষিদ্ধ করেছে। এর পাশাপাশি ফিফার কাছে তাঁরা অনুরোধ করেছে, মিরদাসাইকে যেন রাশিয়া বিশ্বকাপে রেফারিদের তালিকা থেকে ছেঁটে ফেলা হয়।

গত বছর ফিফা কনফেডারেশনস কাপে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ নিয়ে এখন শঙ্কা জাগতেই পারে। পর্তুগাল-মেক্সিকোর সেই ম্যাচে দুটি পেনাল্টি ছাড়াও লাল কার্ড দেখেছিলেন দুই দলের খেলোয়াড়। মেক্সিকো কোচ হুয়ান কার্লোস ওসোরিও ডাগ আউটে বসেও দেখেছিলেন লাল কার্ড। ম্যাচটা সৌদি রেফারি ফাহাদ-আল মিরদাসাই পরিচালনা করেছিলেন বলেই শঙ্কাটা জেগেছে, নিশ্চয়ই কোনো গড়বড় ছিল!

গড়বড় থাকতেও পারে আবার নাও পারে। কিন্তু মিরদাসাইয়ের মধ্যে যে গড়বড় আছে, তাঁর দেশ সৌদি আরব তা ঠিকই ধরে ফেলেছে। শনিবার কিংস কাপের ফাইনালে আল-ইত্তিহাদের কাছে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব দিয়েছিলেন মিরদাসাই। তিনি ছিলেন এই ম্যাচের রেফারি। ৩২ বছর বয়সী এই রেফারি ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাবটা দিয়েছিলেন আল-ইত্তিহাদের প্রধান হামাদ আল-সেনায়িকে। হোয়াটসঅ্যাপ বার্তায় তাঁর এই প্রস্তাব পেয়ে হামাদ তা তাৎক্ষণিকভাবে জানিয়ে দেন সৌদি ফুটবল ফেডারেশনের কর্তাদের।

মিসদাসাইকে এরপর পুলিশি হেফাজতে নেওয়ার পর তিনি ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব দেওয়ার কথা স্বীকার করেন। সংবাদসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, মিরদাসাইকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করেছে সৌদি আরব। সপ্তাহখানেক পরই তাঁকে উড়ে যেতে হতো রাশিয়ায়। ২০১৮ বিশ্বকাপে তিনি ফিফার তালিকাভুক্ত রেফারি। সৌদি ফেডারেশন ফিফার কাছে অনুরোধ করছে, বিশ্বকাপে রেফারিদের তালিকা থেকে মিরদাসাইকে যেন ছেঁটে ফেলা হয়। এ ছাড়াও তাঁকে আজীবন নিষিদ্ধ করার কথাও বিবেচনা করা হচ্ছে।

মিরদাসাই ২০১১ সাল থেকে ফিফার তালিকাভুক্ত আন্তর্জাতিক রেফারি। ২০১৫ সালে তিনি এএফসি এশিয়ান কাপের ম্যাচের পরিচালনা করেন। এ ছাড়াও ২০১৬ রিও ডি জেনিরো অলিম্পিক ও সর্বশেষ ফিফা কনফেডারেশনস কাপে ম্যাচ পরিচালনা করেছেন মিরদাসাই।

সূত্রঃ প্রথম আলো 

Comment