No icon

প্রায় ২০ লাখ টাকা বকশিশই দিয়েছেন রোনালদো

বিশ্বকাপ থেকে পর্তুগাল ছিটকে পড়ার পর গ্রিসের একটি হোটেলে পরিবার নিয়ে ১০ দিন ছুটি কাটিয়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। হোটেল ছাড়ার সময় কর্মীদের ২০ হাজার ইউরো বকশিশ দেন এই পর্তুগিজ তারকা

ফুটবলের বিপণন-বিজ্ঞাপনের জগতে তাঁর দর সবচেয়ে বেশি। ক্লাবগুলোর অন্যতম কাঙ্ক্ষিত ফুটবলার তো বটেই, জুভেন্টাস তাঁকে কিনে যেন হাতে চাঁদ পেয়েছে! এরই মধ্যে ক্লাবটির জার্সি আর টিকিট বিক্রি অবিশ্বাস্যভাবে বেড়ে গেছে। বুঝতেই পারছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কথাই বলা হচ্ছে। বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারের হৃদয়টাও কিন্তু অনেক বড়। গ্রিসে ছুটি কাটাতে গিয়ে যেমন হোটেলকর্মীদের বকশিশ দিয়েছেন দুহাত ভরে!

ছুটি কাটাতে পরিবার ও বন্ধুবান্ধব নিয়ে গ্রিসের পেলোপনেস অঞ্চলের বিলাসবহুল কস্তা নাভারিনো হোটেলে উঠেছিলেন রোনালদো। জুভেন্টাস তারকা হোটেল ছাড়ার সময় কর্মীদের শুধু বকশিশ হিসেবেই দিয়েছেন ২০ হাজার ইউরো। বাংলাদেশি মুদ্রায় অঙ্কটা প্রায় ২০ লাখ টাকা (১৯ লাখ ৬৮ হাজার ৯৬১ টাকা)। রোনালদোর পরিবারের খেদমতে নিয়োজিত ১০ জন হোটেলকর্মী এই টাকা সমান ভাগ করে নিয়েছেন।

গ্রিসে খেলাধুলাভিত্তিক অনলাইন সাময়িকী ‘স্পোর্টটাইম.জিআর’ জানিয়েছে, ‘রোনালদোর পরিবারকে সেবা দিতে এবং পাপারাজ্জিদের কবল থেকে দূরে রাখতে নিয়োজিত ১০ জন কর্মীর প্রত্যেক দুই হাজার ইউরো করে পেয়েছেন।’ সংবাদমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, হোটেলের সেবাযত্নে খুশি হয়েই এই বড় অঙ্কের বকশিশ দিয়েছেন রোনালদো। বিশ্বকাপ থেকে পর্তুগাল ছিটকে পড়ার পর পরিবার নিয়ে এই হোটেলে ১০ দিন ছুটি কাটিয়েছেন ৩৩ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। হোটেলের রয়্যাল মেথোনি ভিলায় ছিলেন পর্তুগিজ তারকা। খ্যাতনামা ব্যক্তিদের থাকার জন্য বিশেষভাবে বানানো এই ভিলায় নানা রকম সুব্যবস্থা রয়েছে।

রোনালদোর সৌজন্যবোধে খুশি হয়ে হোটেলটির এক কর্মী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখেছেন, ‘রোনালদো এবং তাঁর পরিবারকে দেখাশোনা করতে পারা আমাদের দলটার জন্য বিশেষ সম্মান এবং দারুণ অভিজ্ঞতা। আমাদের পথচলায় সময় দেওয়ার জন্য রোনালদোকে অকৃত্রিম ধন্যবাদ।’ গ্রিসের এই হোটেলে এর আগে হলিউড তারকা অ্যাঞ্জেলিনা জোলি ও ব্রাড পিট সময় কাটিয়েছেন।

সূত্রঃ প্রথম আলো 

Comment