No icon

সাকিবের সঙ্গে ধাওয়ানের দুষ্টুমি

আমুদে হিসেবে দারুণ খ্যাতি শিখর ধাওয়ানের। সব সময়ই সতীর্থদের সঙ্গে মজা করছেন, খুনসুটি করছেন। টিভি পর্দায় কোনো খেলার সময় ভারতীয় ওপেনারকে যতবার দেখা যায়, সব সময়ই মুখে লেগে থাকে হাসি। তিনি যে কতটা আমুদে, সেটা খুব ভালোমতোই টের পাচ্ছেন সাকিব আল হাসান।

এবারের আইপিএলে প্রথম থেকেই সাকিব সানরাইজার্স হায়দরাবাদের অন্যতম কেন্দ্রীয় চরিত্র। পারফর্ম করেছেন তিনটি ম্যাচেই। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে তো ব্যাটে-বলে অলরাউন্ড পারফরম্যান্স তাঁর। এমন একজন ক্রিকেটার যে সবার মনোযোগের কেন্দ্রে থাকবেন, সেটা তো না বললেও হচ্ছে।
কলকাতার বিপক্ষে ম্যাচের পর ফিরতি ফ্লাইটে সাকিব ধাওয়ানের দুষ্টুমির লক্ষ্য হলেন। একই সঙ্গে ধাওয়ানের দুষ্টুমির ‘শিকার’ আরেক দুর্দান্ত পারফরমার রশিদ খানও।

উড়োজাহাজ যখন আকাশে, হায়দরাবাদের খেলোয়াড়েরা যে যাঁর আসনে বসেন। সবার মধ্যেই একটু ঝিমুনির ভাব। সাকিব আর রশিদ খান তো ঘুমিয়েই পড়েছিলেন। হয়তো তাঁদের ‘সুখ’ সহ্য হলো না ধাওয়ানের! ছোট এক টুকরা কাগজ হাতে নিয়ে সাকিব আর রশিদ খানের নাকে সুড়সুড়ি দিলেন ভারতীয় তারকা। দুজন ধড়মড়িয়ে উঠবেন, সবাই ব্যাপারটা উপভোগ করবেন—ধাওয়ানের ভাব ছিল এমনটাই। কিন্তু একি! সাকিব আর রশিদ দুজনই থাকলেন নির্লিপ্ত। সাকিব তো আরও নির্লিপ্ত! কিছুই হয়নি, এমন একটা ভাব করে আবার ঘুমে মন দিলেন তিনি। রশিদ ধাওয়ানের দিকে তাকিয়েছিলেন, কিন্তু ঘুমের ঘোর এতটাই ছিল যে ব্যাপারটা বুঝতেই পারলেন না।

আইপিএলে প্রতিটি দলই পর্দার পেছনে ঘটা ঘটনা নিয়ে হাজির হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। সাকিব ও রশিদের সঙ্গে ধাওয়ানের এই দুষ্টুমি এমনই একটা ঘটনা। আইপিএল বিভিন্ন দেশের ক্রিকেটারদের একে অন্যের বন্ধু বানিয়েছে, নিয়ে গেছে কাছাকাছি। ফ্র্যাঞ্চাইজিরাও অন্দরমহলকে উন্মুক্ত করে বাণিজ্যের লক্ষ্মীকে আপন করছে ভালোভাবেই।

Comment